শিক্ষামন্ত্রীকে "ম্যানেজ" করে স্ত্রীকে বাড়ির পাশের স্কুলে বদলি করানোর  অভিযোগ উঠল সুকান্ত মজুমদারের বিরুদ্ধে

শিক্ষামন্ত্রীকে "ম্যানেজ" করে স্ত্রীকে বাড়ির পাশের স্কুলে বদলি করানোর  অভিযোগ উঠল সুকান্ত মজুমদারের বিরুদ্ধে

আরোহী নিউজ ডেস্ক : তিনি এখন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। বিজেপির সাংসদও। কর্মজীবনে মালদহের গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকাকালীন তৃণমূল কংগ্রেসের অধ্যাপক সংগঠনের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। এখন রাজ্য সরকারের প্রতিটি পদক্ষেপের বিরোধিতা করেন। হ্যাঁ, তিনি সুকান্ত মজুমদার। আর তাঁর বিরুদ্ধে তত্‍কালীন শিক্ষামন্ত্রীকে ধরে নিজের স্ত্রীকে ঘরের কাছের স্কুলে বদলি করানোর অভিযোগ উঠল।এমনকী, সুকান্তবাবু তৃণমূল অধ্যাপক সংগঠনের ছত্রছায়ায় থেকে সেমিনার, মিটিং, মিছিল সবই করেছেন। এবার বিজেপি রাজ্য সভাপতির বিরুদ্ধে তত্‍কালীন শিক্ষামন্ত্রীকে "ম্যানেজ" করে নিজের স্ত্রীকে বাড়ির পাশের স্কুলে বদলি করানোর মতো গুরুতর অভিযোগ উঠল।

অভিযোগ, বালুরঘাট থেকে জিতে সদ্য লোকসভার সদস্য হয়েছিলেন সুকান্ত মজুমদার। তখন তাঁর স্ত্রী মালদহের সরকারি স্কুলের শিক্ষিকা। পরিবার নিয়ে মালদহের ফ্ল্যাটেই থাকতেন তিনি। কিন্তু সাংসদ হওয়ার পর নিজের জেলা বালুরঘাটেই ফিরে যান সুকান্ত মজুমদার। আর স্ত্রী কোয়েল চৌধুরী মালদহে আটকে পড়েন। তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, তত্‍কালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে বিজেপির পক্ষ থেকে শিক্ষিকা কোয়েলদেবীর বদলির আবেদন জমা পড়ে। আর বাড়ির কাছে বালুরঘাটের সানাপাড়া হাইস্কুলে বদলি হন তিনি। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় বিজেপির অন্দরে অসন্তোষের পারদ চড়তে শুরু করেছে। মুখে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরোধিতা করলেও শাসকদলের তামাক খাওয়ার অভিযোগ উঠছে সুকান্তের বিরুদ্ধে।