নতুন ভ্যারিয়েন্টকে ‘উদ্বেগের কারণ’ হিসাবে চিহ্নিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার 

নতুন ভ্যারিয়েন্টকে ‘উদ্বেগের কারণ’ হিসাবে চিহ্নিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার 

আরোহী নিউজ ডেস্ক: চলতি সপ্তাহেই দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম খোঁজ মেলে করোনার এক নতুন ভ্যারিয়েন্টের। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে এই ভ্যারিয়েন্টের নাম দেওয়া হল ওমিক্রন। একইসঙ্গে এই ভ্যারিয়েন্টটিকে “উদ্বেগের কারণ” বলেও ঘোষণা করা হল। 

গত ২৩ নভেম্বর, মঙ্গলবার প্রথম এই ভ্যারিয়েন্টের বিষয়টা সামনে আসে। লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ভাইরোলজিস্ট ড. টম পিকক, করোনার এই নয়া রূপ নিয়ে একটি টুইট করেন। তিনি উল্লেখ করেন নয়া ওই ভ্যারিয়েন্টের অভিযোজন ক্ষমতা অনেক বেশি। “অতি সংক্রামক” ধরনের জন্যই নতুন এই ভ্যারিয়েন্টকে উদ্বেগের ‘কারণ’ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে। এই নিয়ে উদ্বেগজনক ভ্যারিয়েন্টের তালিকায় করোনার মোট চারটি ভ্যারিয়েন্ট জায়গা পেল, ওমিক্রন, ডেল্টা, আলফা, বিটা ও গামা। 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ওমিক্রন নামক করোনার এই নতুন ভ্যারিয়েন্টটির ছড়িয়ে পড়ার ক্ষমতা কতটা, ভ্যাকসিন কতটা কার্যকরী, তা বুঝতে কয়েক সপ্তাহ লেগে যেতে পারে। 

দক্ষিণ আফ্রিকা ও হংকং ছাড়াও গতকাল ইজরায়েলেও নতুন এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের খোঁজ মিলতেই একাধিক দেশের তরফে বিমান চলাচলে রাশ টানা হচ্ছে। ব্যপক পতন হয়েছে শেয়ার বাজারেও, কমেছে তেলের দাম। ওমিক্রন নামক এই নতুন ভ্যারিয়েন্টের প্রভাবে ফের একবার বিশ্ব অর্থনীতি প্রভাবিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।