লরিতে ধাক্কা শববাহী গাড়ির ,  মৃত অন্তত ১৮  

লরিতে ধাক্কা শববাহী গাড়ির ,  মৃত অন্তত ১৮  

আরোহী নিউজ ডেস্ক : গভীর রাতে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল ১৮ জনের। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার হাঁসখালির থানার  ফুলবাড়ী এলাকার রাজ্য সড়কে।জানা গেছে শনিবার রাতে  বাগদা থানা এলাকা থেকে একটি শববাহী ম্যাটাডোর নবদ্বীপ শ্মশানের উদ্দেশ্যে  রওনা হয় ।ঠিক সেই সময়  রাস্তায়  উপর দাঁড়িয়ে থাকা একটি পাথর বোঝাই লরিকে সজোড়ে  ধাক্কা মারে ওই শববাহী ম্যাটাডোরটি।ঘটনায় গুরুতর আহতদের  শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ১৮ জনকে মৃত বলে ঘোষণা করে চিকিৎসকেরা।বাকিরা সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছে।ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ঘটনার তদন্তে হাসখালি থানার পুলিশ।

উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা থানার পারমদন ফরেস্ট এলাকার বাসিন্দা বৃদ্ধা শ্রাবণী মুহুরির শনিবার  রোগাক্রান্ত হয়ে   মৃত্যু হয় তার। মৃতের সৎকার করতেই পরিবার ও প্রতিবেশীরা মিলিয়ে ৪০ জন একটি ট্রাকে করে নবদ্বীপ শ্মশানে  যাচ্ছিল। রাত ২ টোর সময় নদিয়ার ফুলবাড়ি খেলার মাঠের কাছে রাজ্য সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পিছনে ধাক্কা মারে শ্মশানযাত্রীদের ম্যাটাডরটি। ভয়াবহ দুর্ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়।

মৃত শ্রাবাণী মুহুরির দেহ-সহ সকলকে স্থানীয় শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে সেখানে প্রথমে ১৩ জনকে মৃত  বলে ঘোষণা করে চিকিৎসকেরা।পরে এই ঘটনায় আরও পাঁচ জনের  মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যায়। বাকিদের সেখানেই  চিকিৎসা চলছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান পুলিশের।স্থানীয়দের দাবি ঘন কুয়াশা এবং গাড়িটির গতিবেগ অতিরিক্ত থাকার কারণে এই দুর্ঘটনা। পুরো বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছে হাঁসখালি থানার পুলিশ।


ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।তিনি এদিন ট্যুইট করে বলেন পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলায় ঘটে যাওয়া পথ দুর্ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। এই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো মানুষদের প্রতি আমার সমবেদনা রইল। ঈশ্বর ওনাদের এই কঠিন পরিস্থিতিতে সহায় হোন। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।