আরোহী নিউজ ডেস্ক :  ভোররাতে কেঁপে উঠলো কেতুগ্রামের সুজাপুর। পাকা বাড়ি ভেঙে গিয়ে জখম হয়েছেন তিনজন। আহতরা প্রত্যেকেই পলাতক। এই নিয়ে যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।

গতকাল ভোররাতে কেতুগ্রাম ২ নম্বর ব্লকের সুজাপুর গ্রামে সাক্ষী গোপাল ঘোষের বাড়ি হঠাৎ বোমা বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। গ্রামবাসীরা ছুটে যায় সাক্ষী গোপাল ঘোষের বাড়ির দিকে। ঘরের ভেতর ঢুকে দেখে ঘরের ভিতরে মজুদ ছিল বোমা। সেখান থেকেই বোমা ফেটে বিস্ফোরণ হয়।

জখম হন সাক্ষী গোপাল ঘোষ, তার ভাই এবং তার ছেলে শুভজিৎ ঘোষ। স্থানীয়দের তৎপরতায় খবর দেওয়া হয় কেতুগ্রাম থানায়। বিস্ফোরণের খবর পেয়ে ছুটে আসে কেতুগ্রাম থানার পুলিশ। নিখোঁজ সাক্ষী গোপাল ঘোষ এবং তার পরিবারের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে কেতুগ্রাম থানার পুলিশ। গ্রামবাসীদের অভিযোগ শুভজিৎ ঘোষ বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির হয়ে কাজ করছিল। যদিও স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের দাবি শুভজিৎ বিজেপি নয় তৃণমূলের কর্মী।

প্রসঙ্গত ষষ্ঠ দফার নির্বাচনে মাঝরাতে কেঁপে ওঠে কেতুগ্রাম। আচমকা বোমা বিস্ফোরণে দুজন গুরুতর আহত হয়। অভিযোগ কেতুগ্রাম এলাকার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বকুল শেখের বাড়ির সামনে হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটে। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন রাজনৈতিক কারণেই এই ধরনের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। এমন কম সময়ের ব্যবধানে এই ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকাবাসী।