সাপুরজি কাণ্ডে আবাসনের নিরাপত্তা নিয়ে আইনের দুর্বলতাকে দায়ী করলেন ফিরহাদ

55

আরোহী নিউজ ডেস্ক, কলকাতা:  দুই গ্যাংস্টার ও পুলিশের শুট আউটের হার হিম করা দৃশ্যের সাক্ষী থেকেছে নিউটাউন সাপুরজি এলাকা। ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে আবাসনের নিরাপত্তা নিয়ে। বৃহস্পতিবার আবাসনের নিরাপত্তা নিয়ে আইনের দুর্বলতাকে দায়ী করলেন আবাসন এবং পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

বুধবার বিকেলে আচমকাই গুলির আওয়াজে কেঁপে ওঠে নিউটাউনের সাপুরজি সুখবৃষ্টি আবাসন। গত কয়েকদিন ধরেই অভিজাত এই আবাসনেই গা ঢাকা দিয়েছিল ২ কুখ্যাত গ্যাংস্টার। কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে নিহত হয় পাঞ্জাবের কুখ্যাত গ্যাংস্টার জয়পাল সিং বুল্লার ও জশপ্রীত জসসি। মূলত আগ্নেয়াস্ত্র ও চোরা চালানে মূল অভিযুক্ত ছিল তারা‌।

এদিকে, বৃহস্পতিবার ব্যক্তিগত মালিকানাধীন আবাসনের ক্ষেত্রে আইনি দুর্বলতা রয়েছে বলে জানান আবাসন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বলেন, “প্রাইভেট হাউসিং কমপ্লেক্সগুলিতে কে বা কারা বসবাস করছে তার রেকর্ড রাখার ক্ষেত্রে বড় বাধা আইনের দুর্বলতা। নিউটাউনের সাপুরজি হাউসিং কমপ্লেক্স কোনো সরকারি আবাসনের মধ্যে পড়ে না, এটি একটি সর্বভারতীয় প্রাইভেট সংস্থার দ্বারা গড়ে উঠেছে। তাই দেশ-বিদেশের বহু মানুষ এখানে ফ্ল্যাট কিনে রেখেছেন। অনেকে নিজেরা না থাকতে পারার কারণে অন্যকে ভাড়াও দিয়েছেন”।

তিনি আরও বলেন, “রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে পুলিশকে অনুরোধ করা হয়েছিল যারা অন্যের ফ্ল্যাটে ভাড়াটিয়া হিসেবে রয়েছেন বা অস্থায়ীভাবে থাকেন তাদের বিষয়ে তথ্য রাখতে। এই বিষয় নিয়ে সুস্পষ্ট কোনো আইনের ব্যবস্থা নেই, ভারতীয় সংবিধান এবং আইনে সম্পত্তির অধিকার মৌলিক অধিকারের অন্তর্ভুক্ত। পাশাপাশি এরাজ্যে নানান ভাষাভাষী ও ধর্ম সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করেন”। তবে এই পরিস্থিতিতে রাজ্য পুলিশের পক্ষ থেকে যেভাবে সতর্কতার সঙ্গে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা যথেষ্ট প্রশংসনীয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।