আরোহী নিউজ ডেস্ক: বহুল প্রচারিত হিন্দি সংবাদপত্র দৈনিক ভাস্করের অফিসে আয়কর হানার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন বিরোধীরা। এই ঘটনায় সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধের অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা। এবার এই ঘটনাকেই হাতিয়ার করে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি দাবি করেন, করোনা মোকাবিলায় মোদি সরকারের ব্যর্থতাকে সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরেছে দৈনিক ভাস্কর। তাই তাদের উপর হামলা চালানো হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সকালে দৈনিক ভাস্করের একাধিক অফিসে হানা দেয় আয়করের আধিকারিকরা। যা নিয়ে প্রথম সরব হন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। তারপরই এই নিয়ে ট্যুইট করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ট্যুইট করে তিনি লেখেন, যাঁরা সত্য বলে, তাঁদের দমিয়ে রাখার এই চেষ্টার আমি তীব্র প্রতিবাদ করি। এটা গণতন্ত্রের মূল ভাবনার বিরোধী। সংবাদমাধ্যমের সবাইকে বলছি, শক্ত থাকুন, ঐক্যবদ্ধ থাকুন। একসঙ্গে থাকলে কেউ অত্যাচার করতে পারবে না।’ মুখ্যমন্ত্রী টুইটারে আরও লেখেন, ‘সংবাদমাধ্যম এবং সংবাদকর্মীদের উপর হামলা গণতন্ত্রকে দমন করার আরও এক পন্থা। নরেন্দ্র মোদি কীভাবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ব্যর্থ হয়েছেন, দৈনিক ভাস্কর সাহসিকতার সঙ্গে সেই সত্যিটা তুলে ধরেছিল।’

প্রসঙ্গত, বুধবার শহিদ দিবসের ভার্চুয়াল সভা থেকে ফ্রন্ট গঠনের ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২৪ লোকসভা ভোটকে পাখির চোখ করে দেশের বিজেপি বিরোধী দল গুলিকে একত্র হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। পাশাপশি পেগাসাস কেলেঙ্কারি নিয়েও এদিন মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। গণতন্ত্রের নামে স্পাইগিরি চলছে বলেই অভিযোগ তুলেছেন তিনি। এবার সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধের অভিযোগেও বিরোধী দল গুলির সঙ্গেই সুর মেলালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি বিরোধী ফ্রন্টকে আরও জোরদার করতে এই পদক্ষেপ বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।