আরোহী নিউজ ডেস্ক: ক্রমেই পরতে পরতে রহস্য খুলছে কসবা ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডের। যেই ফাইজারের টিকা এখনও দেশে অনুমোদন পায়নি সেই সেই ফাইজ়ারের ‘টিকা’ এবার উদ্ধার হল কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিনেশন কান্ডে ধৃত দেবাঞ্জন দেবের অফিস থেকে। দেবাঞ্জনের অফিসে তল্লাশি চালিয়ে ফাইজ়ারের লেবেল লাগানো টিকা পাওয়া গিয়েছে। একইসঙ্গে অফিস থেকে আরও বহু ভুয়ো টিকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া টিকা পরীক্ষার জন্য ড্রাগ ল্যাবে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবারই দেবাঞ্জনের অফিসের কম্পিউটারে নকল কোভিশিল্ড-এর লেবেল তৈরির গ্রাফিক্স পায় পুলিশ। তাঁর কম্পিউটারেই লেবেলের জন্য গ্রাফিক্স তৈরি করা হয়। তারপর তা বাইরে থেকে ছাপিয়ে এনে প্রত্যেকটি ইনজেকশনের শিশির উপর সাঁটিয়ে দেওয়া হত। দেবাঞ্জনের অফিসের কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কটিও বাজেয়াপ্ত করেছেন গোয়েন্দারা।

এছাড়াও দেশে করোনা সংক্রমণ শুরুর সময় দেবাঞ্জন স্যানিটাইজারের ব্যবসা শুরু করেছিলেন বলে জানা গেছে। কিন্তু সেই স্যানিটাইজারও ভুয়ো বলে তদন্তে উঠে এসেছে। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে দেবাঞ্জনের অফিস থেকে স্যানিটাইজারের যে নমুনা পাওয়া গিয়েছে, তা পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে তাতে ইথাইল অ্যালকোহল নেই। রয়েছে হাইড্রোজেন পার-অক্সাইড। যা ঘরবাড়ির জীবাণুমুক্ত করতে ব্যবহার করা হয়।

এর আগে কোভিশিল্ডের লেবেল নকল করে বহু মানুষের ভুয়ো টিকাকরণের অভিযোগ উঠেছে দেবাঞ্জন দেবের বিরুদ্ধে। শুধু কোভিশিল্ডই নয় রাশিয়ার টিকা স্পুটনিক ভি-ও নকল করেছেন এই ভুয়ো আইএএস। এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজারের ভুয়ো টিকাও নিজের অফিসে মজুত করেছিলেন তিনি।