সোনাগাছির যৌনকর্মীদের খাদ্য সামগ্রী দিয়ে সাহায্যে রাজ্য সরকারের

73

আরোহী নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: লক ডাউনের প্রথম থেকেই টান পড়েছিল তাঁদের পেটে। এই সংক্রমণ থেকে বাঁচতে খরিদ্দারে থিক থিক করা এশিয়ার বৃহত্তম যৌনপল্লী হয়ে পড়েছে কার্যত জনমানব শূন্য। তাই সোনাগাছির যৌনকর্মীরা চেয়েছিলেন রাজ্য সরকার তাদের সাহায্য করুক। এই নিয়ে দাবিও জানিয়েছিলেন তাঁরা। অবশেষে সাড়া মিলল। রাজ্য সরকারের সহযোগিতায় চার হাজার যৌনকর্মীকে চাল এবং আলু দেওয়া হবে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে আগামী রবিবার পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে উত্তর কলকাতার মসজিদ বাড়ি এলাকায়। পশ্চিমবঙ্গ সমাজ কল্যাণ দপ্তর এর তরফে এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে একথা।

এতদিন সমাজের অন্যান্য স্তরের মানুষের কাছে দুয়ারে রেশন পৌঁছে গেলেও ব্রাত্য ছিলেন যৌনকর্মীরা। ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সোনাগাছিতে বসবাসকারী প্রায় বারোশো যৌনকর্মীকে এবং রূপান্তরকামীদের 5 কেজি চাল 2 কেজি আলু দেওয়া হবে। রবিবার পর্যন্ত চলবে এই কর্মসূচি। আজ এই কর্মসূচির প্রথম দিনে থাকবেন রাজ্যের নারী কল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা। রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের থাকার কথা রয়েছে।

এদিকে রাজ্যের পদক্ষেপে স্বাভাবিকভাবেই খুশি সোনাগাছির যৌনকর্মীরা। করোনা আবহে লকডাউন চলায় তাদের ব্যবসায় ছেদ পড়েছে। তাই তারা বহুদিন থেকেই চাইছিলেন রাজ্য সরকার তাদের পাশে দাঁড়াক। তাদের সাহায্য করুক। এরপরে রাজ্য সরকারের এহেন উদ্যোগে খুশি তারা।

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার যৌনকর্মীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। এবার বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রীও দেওয়ার সরকারের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা।