আরোহী নিউজ ডেস্ক: দুর্গাপুর ব্যারেজের 22 এবং 27 নম্বর লকগেটের অবস্থা বহুদিন ধরেই বেহাল। ‌ এবার প্রশাসনের উদ্যোগে সেই বেহাল লকগেট বদলে ফেলা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বৃহস্পতিবার রাত এগারোটা থেকে শুক্রবার ভোর চারটে পর্যন্ত দুর্গাপুর ব্যারেজের ওপর যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। একটি নোটিশের মাধ্যমে ব্যারেজের যানবাহন চালকদের জন্য নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। এই নির্দেশ শুক্রবার ভোর বেলা পর্যন্ত থাকবে।

এর ফলে প্রায় 50 কিলোমিটার ঘুরে রানীগঞ্জের মেজিয়া হয়ে বাঁকুড়া যেতে হবে সমস্ত চালকদের। একেকটি গেটের জন্য প্রায় 50 লক্ষ টাকা খরচ হবে বলে জানানো হয়েছে, যদিও গেটের মাপের ওপর নির্ভর করে খরচ বাড়তে বা কমতে পারে। যেমন 17 এবং 22 নম্বর এই দুটি নতুন লকগেট চওড়ায় 4.9 মিটার এবং লম্বায় 8.25 মিটার। 34 টি লকগেটের মধ্যে 17 টি মেরামতি করা হবে। আর দুটি গেট একেবারেই বদলে ফেলা হচ্ছে।

সেচ দপ্তরের এক্সিকিউটিভ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার গৌতম বসু জানালেন, রফিকের সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রেখে কাজ শুরু করার প্ল্যান করা হয়েছে। কাজ শুরু হলে সেচ দপ্তরের কাজে কিছুটা অসুবিধা হবে। কিন্তু অসুবিধা হলেও কোন উপায় নেই বলেই জানিয়েছেন সেচ দপ্তরের আরেক আধিকারিক। রাতের বেলায় দুর্গাপুর ব্যারেজের গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যস্ততম রাস্তা বন্ধ থাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে বীরভূম বাঁকুড়া দক্ষিণ ভারতে যাওয়া আসা করার ক্ষেত্রে বড় রকমের সমস্যা হবে বলেই মনে করছে ট্রাফিক কন্ট্রোল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত বছর অক্টোবর মাসে দুর্গাপুর ব্যারেজের 31 নম্বর গেট ভেঙে বিপত্তি বাধে। এরপর থেকেই বিভিন্ন সময় দাবি উঠেছিল লক গেট বদলানোর। কিন্তু বিভিন্ন কারণেই কাজ শুরু করতে দেরি হচ্ছিল। এরপর এই কাজের গুরুত্ব অনুযায়ী ধাপে ধাপে কাজ শুরু করার পরিকল্পনা করেছে সেচ দপ্তরের ইঞ্জিনিয়াররা।