কোনভাবেই বিতর্ক থেকে নিস্তার পাচ্ছেন না শ্রীলেখা

121

আরোহী নিউজ ডেস্ক,কলকাতা: শ্রীলেখা মিত্র সবসময়ই খবরের শিরোনামের চর্চায় থাকেন। সবসময় তাঁকে দেখা গিয়েছে নানারকম বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলামেলা আলোচনা করতে।কখন‌ও কোন ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন কখনও বা নিজের সঙ্গে হ‌ওয়া অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জন্য সোশ্যাল মিডিয়াকেই বেঁছে নিয়েছেন।

এবারেও ঘটেছে সেই এক‌ই ঘটনা।সম্প্রতি, একটি সংবাদ মাধ্যমে একটি খবর প্রকাশিত হয় রেড ভলান্টিয়ার্সদের টিকাকরণের ব্যবস্থা করে দেওয়ার পরও সেই টিকাকরণ স্থগিত রেখেছে সরকার। আর তাতেই বুধবার ১৮০ জন বাম স্বেচ্ছাসেবক টিকাকরণ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন এবং সেই প্রতিবেদনের একটি ছবি নিজের ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট করে ফের একবার শাসক দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন শ্রীলেখা মিত্র।

এবিষয়ে শ্রীলেখা মিত্র একটি সংবাদ মাধ্যমে জানান ”এই খবরে আমিও শকড। আর সেটাই প্রকাশ করে লিখেছি, এটা কী হল?। অবশ্য অবাক হওয়ারও কিছু নেই, কারণ প্রতিহিংসার রাজনীতি এঁরা খুব ভালো করেই করতে পারেন। যে কাজগুলো সরকারের করার কথা সেগুলো রেড ভলান্টিয়ার্সরা করছে। এটা শুধু এবার নয়, গতবারের লকডাউন থেকেই নানান কাজ তাঁরা করছেন। মানুষ তাঁদেরকে গোল্লা দিয়েছেন, তার পরেও রেড ভলান্টিয়ার্সরা কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁরা তৃণমূল, বিজেপি-র লোকজনের বাড়িতেও অক্সিজেন পৌঁছে দিচ্ছেন। কোন দলের সেটা তাঁরা দেখে কাজ করছেন না। আজ রেড ভলান্টিয়ার্স বলে তাঁদেরই টিকাকরণ আটকে দেওয়া হল। এধরনের লোকজন তো এমনই করবেন। যাঁরা চাল চুরি করে, ত্রিপল চুরি করে, এটা তাঁদের পক্ষেই সম্ভব।”

এদিকে এবিষয়ে তৃণমূলের বিধায়ক দেবাশিস কুমারের মেয়ে অভিনেত্রী দেবলীনা কুমার বলেন, টীকাকরণের জন্য আধার কার্ডের প্রয়োজন তাতে কোথাও রেড ভলেন্টিয়ার্স লেখা থাকে না।আর যদি এইরকম হয় তাহলে অবশ্যই সরকারের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। দেবলীনা সম্প্রতি একটি পোস্ট শেয়ার করে বলেছেন “আমরা হোডিংয়ে শুধু না, লোকের পাশে আছি।