মুকুল যেতেই শুভেন্দুর কাছে আর্জি জানিয়ে বিস্ফোরক পোস্ট বৈশালী ডালমিয়ার

60

আরোহী নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: নির্বাচনের আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন বালির প্রাক্তন বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া। তাঁদের হাওড়ায় অমিত শাহের সভায় বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সুরক্ষার কারণে সেদিন অমিত শাহের বঙ্গ সফর বাতিল হয়ে যায়। এরপর স্পেশ্যাল চার্টার্ড ফ্লাইট পাঠিয়ে রাজীব, বৈশালী, রুদ্রনীলদের দিল্লী নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিজেপিতে যোগ দেন তাঁরা।

বৈশালী ডালমিয়ার উপর আস্থা রেখে বিজেপি এবারের নির্বাচনে তাঁকে বালি থেকেই প্রার্থী করেছিল। কিন্তু ভাগ্য সাথ দেয়নি বৈশালীর। নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়তে হয় প্রাক্তন বিধায়ককে। নির্বাচনে হারের পর বিজেপির কোনও বৈঠকে অথবা কোনও রাজনৈতিক গতিবিধিতে তাঁকে আর দেখা যায়নি। যদিও, বৈশালীর বিজেপি ছাড়া নিয়ে এখনও কোনও গুঞ্জন নেই।

আর এরই মধ্যে কদিন আগেই খাস কলকাতায় বৈশালী ডালমিয়ার ছেলের উপর মারধোরের অভিযোগ উঠেছিল। সেদিন প্রাক্তন বিধায়ক লাইভে এসে শাসক দলের উপর ক্ষোভ উগরে দেন। এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জানতে চান এ কেমন বাংলা? যেখানে দিনে-দুপুরে একজন নিরীহ ছেলের উপর হামলা চালানো হয়। সেদিনের পর আবারও রাজনৈতিক ভূমিকায় দেখা গেল বৈশালী ডালমিয়াকে।

শুক্রবার মুকুল রায়ের বিজেপির ছাড়া যখন নিশ্চিত, তখনই একটি টুইট করে রাজ্যর বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে কাতর আবেদন করেন বৈশালী ডালমিয়া। তিনি নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে একটি পোস্ট করে লেখেন, ‘আমি বিজেপি নেতা তথা দলের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীর কাছে আবেদন করে জানাচ্ছি যে, বিজেপিতে যারা জঞ্জাল আছে তাঁদের যেন অতি শীঘ্রই দল থেকে বের করে দেওয়া হয়।” ওনার এই পোস্টের পর একটি প্রশ্ন উঠেছে। সেটি হল, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে বাদ দিয়ে, শুভেন্দু অধিকারীকেই কেন আবেদন জানালেন তিনি?