বজ্রাঘাতে নিহতদের দুয়ারে খাদ্য-সামগ্রী ও আর্থিক অনুদান সায়নীর

17

আরোহী নিউজ ডেস্ক: বজ্রাঘাতে নিহতদের পাশে রাজ্য সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া সায়নী ঘোষ। খাদ্য-সামগ্রীর সঙ্গে দুয়ারে পৌঁছে দিচ্ছেন আর্থিক অনুদান। সায়নীর উদ্যোগেই যুবরা করছেন এই কাজ। যেমন সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তেমনই যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে কখনও ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে পৌঁছে যাচ্ছেন ইয়াস বিদ্ধস্ত সুন্দরবন এলাকায় তো কখনও তাঁর নেতৃত্বে বজ্রাঘাতে মৃতদের পাশে পৌঁছে যাচ্ছেন তিনি।

শুক্রবার তেমনই ছবি দেখা গেল মুর্শিদাবাদ জেলাতে। সেখানে বজ্রাঘাতে মৃত ব্যক্তিদের প্রতিটি পরিবারের কাছে গিয়ে এক মাসের খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিল মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেস।

বাঁকুড়া জেলার সংগঠনের তরফ থেকে মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করা থেকে শুরু করে তাঁদের সাহায্যার্থে ৫০০০ টাকা করে অনুদান পৌঁছে দেওয়া হল এদিন।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুন বিকেলে ঝড়বৃষ্টি এবং বজ্রপাত শুরু হয়। আর তাতেই রাজ্য জুড়ে মৃত্যু হয় বেশ কয়েক জনের। সবথেকে বেশি মৃত্যু হয় হুগলি জেলায়। ১১ জনের মৃত্যু হয় সেখানে। এরপরেই সবচেয়ে বেশি মুর্শিদাবাদ ছিল নিহতের সংখ্যা। ৯ জনের মৃত্যু হয় মুর্শিদাবাদে।

গত সোমবার দুপুরে যখন ঝড়বৃষ্টি শুরু হয় সেই সময় অনেকেই জমিতে চাষের কাজে করছিলেন। সেই সময়ই দুর্যোগ নেমে আসে। শুক্রবার মুর্শিদাবাদের এইসব পরিবারগুলির সঙ্গে দেখা করে তাঁদের হাতে খাদ্য সামগ্রী ও এককালীন আর্থিক অনুদান তুলে দিলেন তৃণমূলের স্থানীয় যুব নেতারা। সেই ছবি নিজের ট্যুইটারে শেয়ার করেছেন তৃণমূলের যুব-নেত্রী সায়নী ঘোষ।

অভিনেত্রী সায়নীকে বিধানসভা ভোটে প্রার্থী করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। ভোটে হেরে গেলেও লড়াইয়ের ময়দানে সায়নীর মাটি কামড়ে পড়ে থাকা নজর কেড়েছিল সকলের। এরপরই সায়নীকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগের পদে বসিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর ‘যুব’র দায়িত্ব পেতেই একদিকে যেমন সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সায়নী তেমনি নির্বাচনী প্রচারের মতোই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চালাচ্ছেন সায়নী ঘোষ।